যাবার সময় কৈশোরের এক টুকরা নিয়ে গেলেন

:: আমাদের কৈশোর থেকে তারুন্য টা প্রেম বা ক্রাশের ক্ষেত্রে করুন অবস্হায় ছিল । আমাদের বয়সী পশ্চিমা মেয়েরা যখন জর্জ মাইকেল ছবি নিয়ে রাখত , আমরা কি করবো বুঝতে পারতাম না । একে ত অভিভাবক ছিল খুব কঠিন । তখন মাত্র মেয়েদের পড়াশোনা টা উচ্চ মধ্যবিত্ত বা মধ্যবিত্তে অবশ্যই করনিয় হিসেবে মুল্য পেতে শুরু করেছে । সুতরাং অল্প বয়সে প্রেম বা বিবাহ দুটিই গুরত্ব পুর্ন ছিল না । পড়াশোনা করি না করি জীবনে বসন্ত এসে গেছে । প্রেম বা ফ্লার্ট করার আরেকটা অসুবিধা হলো খারাপ মেয়ের তকমা পাওয়া । এটা পেলে ত কথাই নেই ! মার ত জুটতই সংগে সংগে পাহাড়া ও চলতো । এত ঝামেলায় কে যাবে ? আর যাব ত আমাদের একজন থাকা চাই যাকে কল্পনা করা যাবে । যার আইডলে ঐ রকম কাউকে পাওয়ার স্বপ্ন দেখা যাবে । নাই নাই । কোথাও নাই । আমরা ছোট বেলা থেকে বাইরের বই ( অভিভাবকের ভাষায় ) পড়া মানুষ । নাক ও উচা । বাংলা সিনেমার জসিম বা ফারুক আমাদের চেয়ে গ্রামে বা নিম্ন বিত্তে বেশী জনপ্রিয় ছিল । আমাদের বোনরা আবার এক্টু বেশী আধুনিক । আজারাইয়া অভিভাবক দের রক্ত চক্ষু উপেক্ষা করে বিদেশী ক্যাটালগ দেখে জামা বানাই । স্কার্ট পড়ি । এর মধ্যে আসল আমির খান এবং সালমান খান । কিনতু সেটা ত ভারতের । তখনও ওরা আমাদের ঘরে এসে পৌঁছে নাই । নাটকে আছে আফজাল , ফরিদি। । কিনতু তা ও কেমন যেন । তারা অত সুদর্শন না । আবার কলিজা কাট প্যান্ট পড়ে । মাফলার পড়ে যেটা শুকনা পাকনা শরীরে মানায় না । কি করা কি করা । কোথাও কেউ নাই । টিভিতে তখন সাদা কালোর যুগ । সাদা কালোর মধ্যেও একজনের চেহারা আমাদের বড় বোনদের সাথে সাথে আমাদের মনেও রংগীন হতে শুরু করল । চেহারা কি মিষটি ! কথা যখন বলতো তখন মনে হতো আমাদের সাথে বলছেন । যদিও বয়সে বড় বোনদের সাথে ফিট হতো কিনতু তার আকর্ষনের অস্বীকার করা যেতো না । উপস্থাপনার কাজ করা শুরু করেছিল বড় বোনদের আমলে আমরা যা সিকিভাগ পেয়েছি তাতেই মনে হতো আহা কি হতো যদি দেখা হয়ে যেত ? দেশী পোষাকেও মানাত আবার পশচিমা পোষাকেও মানাত । মনে আছে ঈদের অনুষ্ঠান করতো । তার চেহারা দেখে আপন মনে বলতাম ,

‘ ইশশশশশশশশশশ’।

এখনকার ভাষায় ক্রাশ যাকে বলে ।ঐ সময় সুদর্শন তরুন বলতে উনি একমাত্র ছিল ।

এরপরে ত ধা ধা করে বড় হয়ে গেলাম । উনাকে ভুলে গেলাম ।

অনেক বছর পরে ফেসবুকের কল্যানে তাকে দেখলাম । মেয়র হয়েছেন । প্রানের শহরের মেয়র । ঢাকার বৃষ্টির মত রোমান্চকর ।

আজকে উনি চলে গেলেন । ই্ন্না ইলাইহে ও ই্ন্না আললাহে রাজেউন । যাবার সময় কৈশোরের এক টুকরা নিয়ে গেলেন ।

পরপারে ভালো থাকুন আনিসুল হক ।

লেখক : ফারজানা কবির , অনলাইন একটিভিষ্ট ।

২ কোটি টাকার ইয়াবা উদ্ধার

লবণ বোঝাই ট্রাকে করে ইয়াবা পাচারের সময় প্রায় দুই কোটি টাকার ইয়াবা উদ্ধার করেছে র‌্যাব-৭।
বুধবার রাতে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার আরকান মহাসড়কের পটিয়া শান্তির হাট এলাকায় লবণ বোঝাই ট্রাকে তল্লাশি চালিয়ে এসব ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় দুইজনকে আটক করা হয়েছে। তারা হলেন- ট্রাক চালক রমজান আলী (৩৪) ও হেলপার মিজানুর রহমান। তাদের দুইজনের বাড়ি রাজশাহী জেলায়।
পটিয়া থানার ওসি নিয়ামত উল্লা জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে র‌্যাব-৭ এর একটি টিম লবণ বোঝাই ট্রাকে তল্লাশি চালিয়ে ৩৬ হাজার ৪শ’ পিস ইয়াবা উদ্ধার করে। যার আনুমানিক মূল্য ১ কোটি ৮২ লাখ টাকা। ট্রাকটি আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় র‌্যাব-৭ এর ডিএডি অমল চন্দ্র বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছেন।

রোবট সোফিয়ার ‘ধন্যবাদ’ বলা সেই ভিডিও!

বাংলাদেশ নিয়ে একটি ভিডিও বার্তা পাঠিয়েছে রোবট সোফিয়া। এই ভিডিও বার্তায় বাংলাদেশকে শুভেচ্ছা জানিয়েছে সোফিয়া।

বাংলাদেশে আসার আগ্রহের কথাও জানিয়েছে সে। বাংলা ভাষায় ধন্যবাদ জানিয়েছে।

ভিডিও বার্তায় সোফিয়া যা বলেছে,

‘হ্যালো বাংলাদেশ, আমি সোফিয়া- হেন্সন রোবটিক্স এর তৈরি পৃথিবীর প্রথম কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা সম্পন্ন রোবট। আমি অনেক আনন্দের সাথে তোমাদের জানাচ্ছি যে, আমি এবং ডঃ ডেভিড হেন্সন এই বছর ঢাকায় আয়োজিত ‘ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড ২০১৭’ তে অংশগ্রহণ করছি। এতো বড় একটা ইভেন্টের অংশীদার হবার জন্য আমি উদগ্রীব হয়ে অপেক্ষা করছি। আমি ধন্যবাদ জানাচ্ছি বাংলাদেশ সরকারের আইসিটি ডিভিশন এবং ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশকে– আমাদেরকে এই সুযোগটি করে দেয়ার জন্য। আশা করছি, সবার সাথে দেখা হবে। ধন্যবাদ। ‘

ভিডিওটি দেখুন :

প্রসঙ্গত, ৬ ডিসেম্বর ঢাকায় অনুষ্ঠেয় দেশের বৃহত্তম তথ্যপ্রযুক্তি সম্মেলন ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডের উদ্বোধনী দিন সোফিয়া বাংলাদেশ ভ্রমণে আসছে।

ওই দিন সকালে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি) উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অংশ নেবে সোফিয়া। অনুষ্ঠানে অতিথিদের সঙ্গে কথা বলবে সে। সোফিয়া ইংরেজিতে কথা বলে।

‘প্রেমিকাকে’ ১৫ টাকার চাউমিন খাইয়ে শ্রীঘরে যুবক!

মোবাইলে চুটিয়ে প্রেম চলছিল। দেখা করতে চেয়েই হল বিপত্তি। নারী পুলিশ কর্মীর প্রেমের টোপ গিলে শ্রীঘরে ঢুকল ভারতের এক প্রতারক। অভিনয় শিখিয়ে সিনেমা-সিরিয়ালে সুযোগ পাইয়ে দেওয়ার নাম করে টাকা নেওয়ার অভিযোগে মঙ্গলবার বিকেলে সুকুমার রায় ওরফে আকাশ নামে এক যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

এদিন প্রেমিকার সঙ্গে প্রথমবার দেখা করার জন্য সেজেগুজে এসেছিলেন তিনি। জিন্স ও শার্ট। কথামতো প্রেমিকাও পড়েছিলেন লালচে রঙের চুড়িদার। সেটাই ছিল ভিড়ের মধ্যে একে অপরকে চিনে নেওয়ার বার্তা।

বিকেলের দিকে দু’জনের দেখা হয়। প্রেমিকাকে দেখে মুগ্ধ প্রেমিক। এটা-ওটা কথা এগোলো। আর দেরি না করে এ দিনই বিয়ের প্রস্তাব দিয়ে বসেন আকাশ। সিঁদুর কিনে আনেন।

তখনও অবশ্য আকাশ জানেন না, এক কৌটা সিদুঁরের কী মূল্য চোকাতে হবে তাকে।

একটি হোটেলে যায় যুগল। ১৫ টাকা দিয়ে কেনা চাউমিন যখন কাঁটা চামচ দিয়ে খাচ্ছে প্রেমিকা, সেদিকে মুগ্ধ চোখে চেয়ে আকাশ। সঙ্গে গাইছেন গুনগুন করে গান।

প্রেমিকাকে রুমাল এগিয়ে দেয় আকাশ। প্রেমিকার লিপস্টিক মাখা রুমাল যত্নে ভরে পকেটে। দু’জনে বেরোয় দোকান থেকে।

এরপরই ঘটল আসল ক্লাইমেক্স।

হঠাৎই কোথা থেকে আসল এক নারী ও দুই যুবক। আকাশের জামার কলার ধরে টানতে টানতে গাড়িতে তোলেন তারা। প্রেমিকাও ওঠে গাড়িতে।

তখনও বুঝে উঠতে পারছে না আকাশ, ঘটছেটা কী! ভুল ভাঙল ধমক-চমকে। যখন প্রেমিকাও গলা মোটা করে দাবড়ানি দিয়ে চুপ করে বসতে বলল আকাশকে, তখন তিনি বুঝলেন, এতদিন ফাঁদ পেতে শিকার ধরে এবার তিনি নিজেই পড়েছেন আরো বড় ফাঁদে।

পুলিশ জানায়, দিন কয়েক আগে বনগাঁ কেব্‌ল টিভিতে একটি বিজ্ঞাপনে অভিনয় শিক্ষা, সিরিয়াল-সিনেমায় সুযোগের কথা বলা হয়। যোগাযোগের জন্য একটি ফোন নম্বরও দেওয়া হয়েছিল।

আইসি সতীনাথ চট্টরাজের কাছে খবর ছিল, সিনেমায় সুযোগ দেওয়ার নাম করে টাকা হাতানো হচ্ছে। আইসির নির্দেশ মতো এক নারী কনস্টেবল বিজ্ঞাপনে দেওয়া মোবাইল নম্বরে ফোন করেন। অভিনয় শেখার ইচ্ছা প্রকাশ করেন।

টাকা-পয়সা নিয়ে কথা এগোয়। অন্তরঙ্গতা বাড়ে। নতুন সঙ্গিনীর হদিস পেয়ে আকাশও তখন দিশেহারা। দেখা করার জন্য ইনিয়ে বিনিয়ে অনেক কিছু বলতে থাকে।

শেষমেষ ফাঁদে পড়ে ধরা খেল ওই যুবক।

পুলিশকে আকাশ জানিয়েছে, ৬ মাসের কোর্সের জন্য ৫ হাজার টাকা নিত। তারপরে সব ভোঁ ভাঁ। তাকে কোথাও সুযোগ করিয়ে দেওয়ার মতো যোগ্যতাই নেই তার। পুলিশ আরও জানতে পেরেছে, মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দিয়ে আর্থিক প্রতারণা তো বটেই, মেয়েদের দেহ ব্যবসার কাজেও নামাতেন তিনি। পুলিশ ওই চক্রের বাকিদের খোঁজ করছে।

জেলে মাথায় হাত দিয়ে আকাশ বলেন এতবড় ঢোকা খাব ভাবতেই পারছি না।

আর পোশাক বদলে পুলিশের ইউনিফর্ম পরে নারী কনস্টেবল তখন বাইরে বসে বলছেন, ‘এমন হাড়কিপ্‌টে ছেলে জীবনে দেখিনি। বিয়ে করতে চেয়ে মাত্র ১৫ টাকা দিয়ে চাউমিন খাওয়ালো ।’

৩৯ টাকা দরে আমন চাল কিনবে সরকার

চলতি আমন মৌসুমে অভ্যন্তরীণ বাজার থেকে মোট ৩ লাখ মেট্রিক টন আমন চাল কেনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। ৩৯ টাকা দরে ওই চাল সংগ্রহ করা হবে। আগামী ৩ ডিসেম্বর থেকে শুরু হয়ে সংগ্রহ অভিযান—চলবে আগামী বছরের ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে আজ বৃহস্পতিবার খাদ্য পরিকল্পনা ও পরিধারণ কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়।

সভা শেষে খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, তিন লাখ মেট্রিক টন আমন চাল কেনার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। প্রতি কেজি আমন চাল ৩৯ টাকা দরে সংগ্রহ করা হবে। এবার প্রতি কেজি আমন চাল উৎপাদনে খরচ হয়েছে ৩৭ টাকা।

উল্লেখ্য, গত বছর ৩৩ টাকা দরে ৩ লাখ মেট্রিক টন চাল সংগ্রহ করে সরকার। ১ ডিসেম্বর থেকে শুরু হয়ে সংগ্রহ অভিযান ১৫ মার্চ ২০১৭ পর্যন্ত চলে। সে বছর প্রতি কেজি চাল উৎপাদনে খরচ হয়েছিল ২৯ টাকা।

খাদ্যমন্ত্রীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় উপস্থিত ছিলেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরীসহ কমিটির সদস্য, খাদ্য মন্ত্রণালয়, খাদ্য অধিদপ্তর এবং খাদ্য পরিকল্পনা ও পরিধারণ ইউনিটের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

খালেদাকে গ্রেপ্তারে পরোয়ানার প্রতিবাদে রোববার বিএনপির বিক্ষোভ

দুর্নীতির এক মামলায় খালেদা জিয়াকে গ্রেপ্তারে জারির প্রতিবাদে রোববার সারাদেশে বিক্ষোভের কর্মসূচি দিয়েছে বিএনপি।

বৃহস্পতিবার বিকালে এক সংবাদ সম্মেলনে দলের জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

তিনি বলেন, “আজকে সরকারের নীলনকশার অংশ হিসেবে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে এই গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে। সরকারের বণ্য আক্রোশের কারসাজিতে এই গ্রেপ্তারি আদেশ জারি হয়েছে বলে আমরা মনে করি। আমরা এহেন আদেশ জারির নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

“এর প্রতিবাদে আগামী রোববার ৩ ডিসেম্বর সারাদেশে ঢাকা মহানগরসহ সারাদেশে জেলা সদরের থানায় বিক্ষোভ কর্মসূচি পালিত হবে।”

ঢাকার পঞ্চম বিশেষ জজ আদালতের বিচারক মো. আখতারুজ্জামান বৃহস্পতিবার জিয়া এতিমখানা ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় আত্মপক্ষ সমর্থনেআদালতে হাজির না হওয়ায়  খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে পরোয়ানা জারির আদেশ দেন এবং বিচারিক কার্যক্রমের পরবর্তী ধাপে যুক্তিতর্ক শুনানির জন্য ৫, ৬ ও ৭ ডিসেম্বর দিন ঠিক করে দেন।

নয়া পল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত জরুরি সংবাদ সম্মেলনে রিজভী অবিলম্বে এই পরোয়ানা প্রত্যাহারের দাবি জানান।

তিনি বলেন, “বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে বাম দলগুলোর হরতাল থাকায় নিরাপত্তাজনিত কারণে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া হাজির হতে পারবেন না, এজন্য সকালেই বিশিষ্ট আইনজীবী আদালতে গিয়ে যথারীতি আবেদন করেছেন। দেশের সর্ববৃহৎ রাজনৈতিক দলের প্রধান কি করে সেই হরতাল ডিঙিয়ে আদালতে যাবেন? আইনজীবীরা এটার যথাযথ যুক্তি উপস্থাপন করেছেন আদালতে।

“এমনকি হরতাল শেষ হওয়ার পর বেগম খালেদা জিয়া আদালতে আসতে চান বলে আইনজীবীরা আবেদন করেছেন। কিন্তু আদালত তা নাকচ করে দিয়ে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছে। এই আদেশ ন্যায়বিচারের পরিপন্থি। আমরা মনে করি, এই ঘটনা সরকারের প্রত্যক্ষ মদদে হয়েছে। বেগম জিয়ার বিরুদ্ধে সরকারের পাশবিক জিঘাংসার প্রতিফলন এটি।”

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, হাবিব উন নবী খান সোহেল, কেন্দ্রীয় নেতা শহীদউদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, মীর সরফত আলী সপু, আফরোজা আব্বাস, আবদুস সালাম আজাদ, কাজী আবুল বাশার, মীর নেওয়াজ আলী নেওয়াজ, মুনির হোসেন, সুলতানা আহমেদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তার পরোয়ানা জারির প্রতিবাদে জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দল শনিবার মহানগর ও জেলা সদরে, রোববার থানা ও পৌরসভায় এবং যুবদল শুক্রবার, ছাত্রদল শনিবার সারাদেশে বিক্ষোভের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে।

ডিআরইউ’র সভাপতি সাইফুল, সাধারণ সম্পাদক শুভ

ঢাকায় কর্মরত পেশাদার রিপোর্টারদের সংগঠন ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) কার্যনির্বাহী কমিটির নির্বাচনে সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন সাইফুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন সৈয়দ শুকুর আলী (শুভ)।

বৃহস্পতিবার ডিআরইউ কার্যালয়ে এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ দিন সকাল ৯টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে বিকেল ৫টা পর্যন্ত চলে।এ সময় ডিআরইউ সদস্যরা স্বতস্ফূর্তভাবে ভোট প্রদান করেন।

ডিআরইউ কার্যনির্বাহী কমিটির ২১টি পদের বিপরীতে ৪০ জন প্রার্থী নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেন। এর মধ্যে সভাপতি পদে নির্বাচন করেন সাইফুল ইসলাম, আবু দারদা যুবায়ের ও রফিকুল ইসলাম আজাদ।

সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচন করছেন মুরসালিন নোমানী, শেখ মুহাম্মদ জামাল হোসাইন (শেখ জামাল), রেজাউল করিম, শাসছুদ্দীন আহমেদ ও সৈয়দ শুকুর আলী (শুভ)।

বিস্তারিত আসছে…

শহীদদের প্রতি পোপের শ্রদ্ধাঞ্জলি

জাতীয় স্মৃতিসৌধে বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধে অমর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন ক্যাথলিক খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা পোপ ফ্রান্সিস।

বৃহস্পতিবার বিকালে তিনি সাভারের জাতীয় স্মৃতিসৌধে পৌঁছান।

এর আগে বেলা ২টা ৫৫ মিনিটে পোপকে বহনকারী বিশেষ বিমান হযরত শাহজালাল (রহ) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে।

এরপর বিকাল ৩টা ৩ মিনিটে বিমান থেকে নেমে এলে পোপকে স্বাগত জানান রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।

পরে বিমানবন্দরে পোপ ফ্রান্সিসকে লালগালিচা সংবর্ধনা ও গার্ড অব অনার প্রদান করা হয়।

তিন দিনের সফরের শুরতেই নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তাব্যবস্থার মধ্য দিয়ে বিমানবন্দর থেকে সরাসরি সাভারে অবস্থিত জাতীয় স্মৃতিসৌধে পৌঁছান তিনি।

সেখান থেকে ফিরে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরে গিয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের কথা রয়েছে তার। সেখানে তিনি স্মৃতিগ্রন্থেও স্বাক্ষর করবেন।

এছাড়া তিনি বঙ্গভবনে গিয়ে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন। বঙ্গভবনে রাষ্ট্রের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ, সুশীল সমাজ ও কূটনৈতিক মহলের সঙ্গে বৈঠক করবেন। সেখানে পোপ বক্তব্য রাখবেন।

সফরের দ্বিতীয় দিনে শুক্রবার সকাল ১০টায় সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে খ্রিস্টধর্মীয় উপাসনা ও যাজক অভিষেক অনুষ্ঠানে পোপ বক্তব্য রাখবেন। একই দিনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে পোপের বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে।

বিকালে ক্যাথেড্রাল পরিদর্শন করবেন এবং রমনায় প্রবীণ যাজক ভবনে পোপের সঙ্গে বাংলাদেশের বিশপদের বিশেষ বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। সেখানে পোপ বক্তব্য রাখবেন। তারপর আর্চবিশপ হাউসের মাঠে শান্তির জন্য আন্তঃধর্মীয় ও আন্তঃমাণ্ডলিক সমাবেশে পোপ বক্তব্য রাখবেন।

পোপ তার সফরের শেষ দিন শনিবার সকালে তেজগাঁওয়ে মাদার তেরেসা ভবন ব্যক্তিগতভাবে পরিদর্শন করবেন। তার পর তেজগাঁও গির্জায় যাজকবর্গ, ব্রাদার-সিস্টার, সেমিনারিয়ান ও নবিশদের সমাবেশে পোপ বক্তব্য রাখবেন। তিনি তেজগাঁওয়ে পুরনো গির্জা পরিদর্শন করবেন।

বিকালে নটর ডেম কলেজে যুব সমাবেশে তিনি বক্তব্য রাখবেন।

শনিবার ৫টার দিকে রোমের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করবেন।

সফরকালে পোপ লা মেরিডিয়ান হোটেলে থাকবেন। ওই হোটেলে বিশাল মিডিয়া সেন্টার স্থাপন করা হয়েছে। পোপের সফর কভার করার জন্য প্রায় ৩০০ বিদেশি সাংবাদিক ঢাকায় আসছেন। রোহিঙ্গা সংকটের পরিপ্রেক্ষিতে পোপের এবারের ঢাকা সফরকে খুবই তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে।

ইতিপূর্বে ভ্যাটিকান থেকে রোহিঙ্গাদের ওপর দমনপীড়নের তীব্র নিন্দা করেছিলেন পোপ ফ্রান্সিস। তখন তিনি রোহিঙ্গাদের ‘রোহিঙ্গা ভাই ও বোন’ বলে সম্বোধন করেছিলেন। কিন্তু তিনি মিয়ানমার সফরে যাওয়ার আগে জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব কফি আনান তার সঙ্গে সাক্ষাৎ করে মিয়ানমার সফরকালে ‘রোহিঙ্গা’ শব্দ ব্যবহার না করার জন্য অনুরোধ করেন। মিয়ানমারে ‘রোহিঙ্গা’ শব্দ উচ্চারণ না করলেও ঢাকায় এসে রোহিঙ্গা শব্দ আবার ব্যবহার করবেন কিনা, সেদিকেই আগ্রহ থাকবে সবার।

আনিসুল হকের ফুসফুসেও সমস্যা ধরা পড়েছে

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আনিসুল হকের অবস্থা ভালো নয়। রক্তে সংক্রমণের পর তাঁর ফুসফুসেও সমস্যা ধরা পড়েছে।

যুক্তরাজ্যের একটি হাসপাতালে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আনিসুল হক চিকিৎসাধীন রয়েছেন। সেখানে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) রেখে তাঁর চিকিৎসা চলছে।

আজ বৃহস্পতিবার মেয়রের পারিবারিক সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

গত ২৯ জুলাই ব্যক্তিগত সফরে সপরিবারে যুক্তরাজ্যে যান মেয়র আনিসুল হক। অসুস্থ হয়ে পড়লে গত ১৩ আগস্ট তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর তাঁর শরীরে মস্তিষ্কের প্রদাহজনিত রোগ ‘সেরিব্রাল ভাস্কুলাইটিস’ শনাক্ত করেন চিকিৎসকেরা। এরপর তাঁকে দীর্ঘদিন আইসিইউতে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছিল। একপর্যায়ে মেয়রের শারীরিক পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হওয়ায় তাঁর কৃত্রিম শ্বাসযন্ত্র খুলে নেওয়া হয়।

কিন্তু মঙ্গলবার মেয়রের পরিবারের একজন সদস্য বলেন, রক্তে সংক্রমণ ধরা পড়ায় তাঁকে আবার আইসিইউতে নেওয়া হয়েছে। পরিবারের পক্ষ থেকে মেয়রের সুস্থতা কামনা করে দোয়া করার জন্য সবার প্রতি অনুরোধ জানানো হয়েছে।

খালেদা জিয়ার জামিন বাতিল, গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন বাতিল করে তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছেন ঢাকার বিশেষ জজ আদালত।

বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর বকশীবাজারে কারা অধিদফতরের প্যারেড গ্রাউন্ডে স্থাপিত ঢাকার ৫নং বিশেষ জজ আদালতের বিচারক ড. আখতারুজ্জামান এ আদেশ দেন।

এ ছাড়া আগামী ৫, ৬ ও ৪ ডিসেম্বর যুক্তিতর্কের দিন ধার্য করেন আদালত।

আজ জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়ার আত্মপক্ষ সমর্থনের অসমাপ্ত বক্তব্য দেয়া এবং জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় আত্মপক্ষ সমর্থনের বক্তব্য দেয়ার দিন ধার্য ছিল।

কিন্তু বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর প্রতিবাদে সিপিবি-বাসদ ও গণতান্ত্রিক বাম মোর্চার ডাকে আজ সকাল ৬টা থেকে ২টা পর্যন্ত অর্ধদিবস হরতালের কারণে বিএনপি নেত্রী আদালতে হাজির হননি। এ কারণে জামিন বাতিল করে তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত।

এর আগে গত ২৩ নভেম্বর বিশেষ আদালতে হাজির হয়ে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় স্থায়ী জামিন আবেদন করেছিলেন বিএনপি নেত্রী। তবে আদালত এ আবেদন নাকচ করে মামলার পরবর্তী শুনানির জন্য ৩০ নভেম্বর দিন ধার্য করেছিলেন।

উল্লেখ্য, জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্টের নামে অবৈধভাবে ৩ কোটি ১৫ লাখ ৪৩ হাজার টাকা লেনদেনের অভিযোগে ২০১০ সালের ৮ আগস্ট রাজধানীর তেজগাঁও থানায় একটি মামলা করে দুদক।

আর জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের নামে এতিমদের জন্য বিদেশ থেকে আসা ২ কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৭১ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ২০০৮ সালের ৩ জুলাই রাজধানীর রমনা থানায় অপর মামলাটি করা হয়।