সাইবার হামলায় ব্যাংক ডাকাতি, এবারের শিকার নেপাল

নভেম্বর ৮, ২০১৭ ৯:১৭ পূর্বাহ্ণ

সাইবার হামলার সর্বশেষ শিকারে পরিণত হয়েছে নেপালের একটি ব্যাংক। এ ব্যাংকটির নাম হলো এনআইসি এশিয়া ব্যাংক।  গত মাসে সুইফ ব্যাংকিং সিস্টেম ব্যবহার করে হ্যাকাররা এখান থেকে ৪৪ লাখ ডলার স্থানান্তর করে। তবে শেষ পর্যন্ত চুরি যাওয়া ওই অর্থ উদ্ধার করা হয়েছে। তদন্তকারী দলের দু’জন কর্মকর্তা এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এ খবর দিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। এতে বলা হয়, ধারাবাহিক সাইবার হামলার সর্বশেষ শিকারে পরিণত হয়েছে নেপালের একটি ব্যাংক।

হামলাকারীরা সুইফট কোড ব্যবহার করে চুরি করে ৪৪ লাখ ডলার। কাঠমান্ডু ভিত্তিক ব্যাংক এনআইসি এশিয়া ব্যাংক থেকে ওই অর্থ স্থানান্তর করে নেয়া হয় বৃটেন, চীন, জাপান, সিঙ্গাপুর ও যুক্তরাষ্ট্র সহ আরো কিছু দেশে। এই হামলার ঘটনা ঘটে ব্যাংকের বার্ষিক ছুটির সময়ে। কিন্তু চুরি করা অর্থ হজম করতে পারে নি হ্যাকাররা। ৫ লাখ ৮০ হাজার ডলার বাদে বাকি সব অর্থ উদ্ধার করা হয়েছে। সেন্ট্রাল নেপাল রাষ্ট্র ব্যাংক (এনআরবি)-এর ডেপুটি গভর্নর চিন্তামনি শিবাকত বলেছেন, তারা অর্থ চুরির এ বিষয়েটি জানার সঙ্গে সঙ্গে সংশ্লিষ্ট দেশগুলোতে তা আটকে দেয়ার অনুরোধ জানান। এর ফলে সবটা অর্থই আটকানো সম্ভব হয়। কিন্তু ততক্ষণে ৫ লাখ ৮০ হাজার ডলার উত্তোলন করে নেয়া হয়েছে। ওদিকে গত মাসে ব্রাসেলসভিত্তিক সুইফট বলেছে, গত বছর বাংলাদেশ ব্যাংকের ৮ কোটি ১০ লাখ ডলার চুরি যাওয়ার ফলে অন্যান্য হ্যাকিং তৎপরতার বিষয়ে তারা সতর্ক হয়েছে এবং এমন হামলা আটকে দেয়ার ক্ষেত্রে তা সহায়তা করেছে। তবে তারা সাফ জানিয়ে দেয়, সাইবার হামলা থেমে নেই। হ্যাকাররা সুইফট কাস্টমারদের অব্যাহতভাবে টার্গেট করে যাচ্ছে। উল্লেখ্য, সুইফট হলো সোসাইটি ফর ওয়ার্ল্ডওয়াইড ইন্টারব্যাংক ফাইনান্সিয়াল টেলি কমিউনিকেশন-এর সংক্ষিপ্ত রূপ। সুইফট যারা ব্যবহার করেন তাদের সমন্বয়ে এটি একটি সহযোগিতামুলক ব্যবস্থা। তবে নেপালের এনআইসি এশিয়া ব্যাংক হ্যাক হওয়া নিয়ে কোনো মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে সুইফট। তারা বলেছে, বিশেষ কোনো ব্যবহারকারীর বিষয়ে কোনো কথা বলবে না। এখানে উল্লেখ্য, নেপালে কয়েক ডজন বেসরকারি ব্যাংকের মধ্যে এনআইসি এশিয়া ব্যাংক অন্যতম। তাদের কোনো প্রতিনিধি এ বিষয়ে কথা বলতে রাজি হন নি। তবে নেপালের সেন্ট্রাল ইনভেস্টিগেশন ব্যুরোর প্রধান পুষ্কর কারকি নিশ্চিত করেছেন যে, তার এজেন্সি এই অর্থ চুরির বিষয়ে তদন্ত করছে। এ তদন্তে জড়িত রয়েছে কেপিএমজিও। তবে তাদের তরফ থেকেও কোনো মন্তব্য পাওয়া যায় নি। এমন হামলা কিভাবে মোকাবিলা করা যায় সে বিষয়ে একটি নির্দেশিকা প্রকাশ করার কথা রয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে। চিন্তামনি শিভাকতি বলেছেন, এই ঘটনা আমাদেরকে দেখিয়ে দিয়েছে ওই ব্যাংকটিতে আইটি বিভাগে বেশ কিছু দুর্বলতা আছে।

 
সংবাদটি পড়া হয়েছে 1048 বার
 
 
 
 
বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদ ও তারেক রহমান
 
 
 
 

সব মেনু এক সাথে

 
 

পূর্বের সংবাদ

 
 

অনন্য অনলাইন পত্রিকা

 
 
 

 
Plugin by:aAM
Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com