রক্ত মিছিল…

মার্চ ৭, ২০১৮ ৫:১৭ অপরাহ্ণ

মা,
তুমি যে তুমি,সেই তুমি,
তুমি তো শুধুই মা “আমার মা”,
তুমি তো আমার “আদর্শ মা”।

মা,
আজ তুমি অত্যাচারীর হাতে বন্দী,নির্যাতিত,নিপীড়িত,স্বামীহারা,
সম্বল শুধু তোমার দামাল ছেলে এই আমি।

মা,
সেই আমি কোনদিন তোমার মুক্তির জন্য মিছিল করব না,
রাজপথে স্লোগান দিব না-
“রাজপথ ছাড়ি নাই
মা-তোমার ভয় নাই”।

মা,
তোমার মুক্তির জন্য কোনদিন বিক্ষোভ করব না,
মঞ্চ জ্বালাময়ী বক্তৃতা-ভাষণ দিব না কোনদিন।

মা,
আমি তোমার মুক্তির জন্য কোন সাংবাদিক সম্মেলনও করব না,
কোন লিখিত বক্তব্য হাতে ধরিয়েও দিব না কোনদিন।

মা,
আমি টিভিতে টিভিতে তোমার মুক্তির জন্য আলোচনাও করব না,
বাসায় ফিরার পথে হাতে সাদা-হলুদ-বাদামী খামও নিব না কোনদিন।

মা,
আমি কালো-লাল রঙের লেখায় তোমার নিঃশর্ত মুক্তির জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাচীরে প্রাচীরে প্রাচীরপত্র লাগাবো না,
অলিতে-গলিতে তোমার মুক্তির জন্য চিকাও মারব না,

মা,
লিখবো না কোনদিন-
“আমার নেত্রী,আমার মা
বন্দী রাখতে দিব না”।

মা,
ছাত্র-ছাত্রীদের বলব না অতীতের মত এই অত্যাচারের বিরুদ্ধে বুক চেঁতিয়ে দাঁড়াতে।

মা,
কৃষক-শ্রমিক,তাঁতী-জেলে,কামাড়-কুমাড় কে বলব না দাঁ-কোঁদাল,হাঁতুড়ি-খুনতা-বাটালি নিয়ে তোমার মুক্তির জন্য রুখে দাঁড়াতে।

মা,
আমি বলব না শিল্পীকে তাঁর কন্ঠ ও শিল্পের মাধ্যমে প্রতিবাদ জানাতে।

মা,
আমি শ্রদ্ধেয় শিক্ষকদেরও বলবনা ন্যায়ের পক্ষে কথা বলতে।

মা,
“আমার মা”বন্দী কেন?এই প্রশ্নও করব না “বাংলাদেশ সেনাবাহিনী”কে।

মা,
বাংলাদেশের ১৬ কোটি মানুষের কাছে কোনদিন অভিযোগও করব না।

মা,
আমি কোনদিন বিশ্ব মোড়লদের তোমার বন্দীত্ব দৃষ্টি গোচর করাব না,
আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমে তোমার মুক্তির জন্য সংবাদ প্রচারও করব না।

মা,
তোমার প্রতি অবিচারের জন্য ন্যায়-বিচারকের কাছে ন্যায়-বিচার প্রত্যাশাও করব না।

মা,
এমনকি তোমার মুক্তির জন্য সৃষ্টিকর্তার সাহায্যও চাইবো না।

মা,
আসলে আমার কি করার আছে তোমার মুক্তির জন্য?

মা,
তুমি তো জানো-বিশ্ব আজ অত্যাচারকে শাসন হিসেবে দেখে,
অবিচার-অন্যায়কে ন্যায়বিচার হিসেবে দেখে বিশ্ব।

মা,
তুমি আরও জানো
কলম সৈনিকদের কলম আজ নিরপেক্ষ নেই।

মা,
জ্ঞান-বিচার,বিদ্যা-বুদ্ধি,বিবেক আজ বিক্রিত
বিশ্ব-দেশ,সমাজ-পরিবার আজ বিভক্ত।

মা,
খোদা প্রদত্ত “মহীয়ান ক্ষমতা” আজ নষ্টদের দখলে,
আমার পৃথিবীতে-দেশে,সমাজে,এমনকি পরিবারে-ঘরে আজ আমি পরবাসী।

মা,
আজ তো অনৈতিকতাই নৈতিকতা,নীতিহীন আজ নীতির দন্ড স্বরূপ,
কূট-কৌশলই আজ কৌশল বলে বাহবা প্রাপ্ত।

মা,
রাজনীতি আজ সেবার পরিবর্তে ব্যবসা,
রাজনীতির নীতি আজ টাকার পূজারী।
আর ছাত্রনেতাদের স্থান আজ সবার চোখে গুন্ডা-মস্তান,দুস্কৃতিকারী,নষ্টদের তালিকায়।

মা,
তুমি তো জানো-মানুষ আজ নিজেকে নিয়ে ব্যস্ত-স্বচেষ্ট,সজাগ,
সমাজ,দেশ,বিশ্ব আজ বালক-বালিকার তৈরী খেলাঘর-ঘুমন্ত।

মা,
তুমিই বল আমার কি করার আছে?আমি কি করব?
আদৌ কি আমার করার কিছু আছে?

মা,
তোমাকে যেদিন “ওরা” বন্দী করে নিয়ে গেল শুধু অশ্রুসজল চোখে প্রিজনভ্যানের দিকে তাকিয়ে ছিলাম,
আমার কিছুই করার ছিল না।

মা,
মনে কি নিদারুন কষ্ট,ব্যথা আর অসহায়ত্ব বোধ,
চোখে মুখে প্রচন্ড ঘৃণা আর লজ্জা।

মা,
আর বলতে পারতেছি না আমি
মা,আমার মা,
শুধু হাহাকার আর আহাযারি।

মা,
আমি এতিম,তুমি গণতন্ত্র।

মা…
তোমার মুক্তির জন্য অবশ্যই আমার কিছু না কিছু করার আছে।

মা,
আমি চাই গণভবনের গেটে খোলা বুকে দাঁড়াতে,
হাতে নাঙ্গা খঞ্জর সূর্যের আলোতে চকমকিয়ে উঠবে,
ঠিক তাঁর আসা -যাওয়ার পথের উপর

মা,ও মা,মা গো…
নিজেই নিজের বুকটা একটানে চিঁরে বুকের সমস্ত রক্ত ঢেলে দিব।

মা,
আমি জানি সে আমার তাজা গরম রক্ত মাড়িয়ে যাবে,
তাঁর পিছুপিছু যাবে পেন্সিল হীলের ছোপছোপ রক্তদাগ।

মা,
হয়ত সে বলবে তাঁর “আলতা”-“বালিকাচিহ্ন”।
কিন্তুু আমি জানি চিরদিন সে বয়ে বেরাবে রক্ত চিৎকার,রক্তের বিক্ষোভ,রক্ত সমাবেশ।

মা,
আর তাঁর কানে ভেসে আসবে প্রতি মুহূর্তে একটি মিছিলের শব্দ,
কিসের মিছিল,কিসের মিছিল বলে চিৎকার করে উঠবে সে।

মা,
কেউ একজন বলবে তাঁকে-এতো,এতো,
সে আত্নচিৎকার করে বলবে- কি?কি?

মা’র জন্য…

“রক্ত মিছিল”

উৎসর্গ:

বিএনপি’র চেয়ারপার্সন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জনাব তারেক রহমান এবং যাদের রক্ত “রক্ত মিছিল” করে এবং আগামিতে করবে।

লেখক:

সোহেল রানা
সভাপতি
বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়।

 
সংবাদটি পড়া হয়েছে 1307 বার
 
 
 
 
বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদ ও তারেক রহমান
 
 
 
 

সব মেনু এক সাথে

 
 

পূর্বের সংবাদ

 
 

অনন্য অনলাইন পত্রিকা

 
 
 

 
Plugin by:aAM
Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com