মহরত হয়, ছবি হয় না

জানুয়ারি ২৫, ২০১৮ ৮:৪২ পূর্বাহ্ণ

২০১৭ সালের ২৭ এপ্রিল। এফডিসির জহির রায়হান কালার ল্যাব মিলনায়তনে চলচ্চিত্র বোদ্ধাদের যেন মিলনমেলা বসেছিল। অনুষ্ঠানে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু ছিলেন প্রধান অতিথি। সেদিন মহরত হয় অচেনা পৃথিবী ছবির। ছবির নায়ক-নায়িকা বাপ্পী ও জলি। অনুষ্ঠানের মাসখানেকের মধ্যেই শুটিং শুরু করার ঘোষণা দেন ছবির পরিচালক সালমান বিন আকরাম।
কিন্তু ওই ছবির শুটিং শুরু না করেই ঠিক চার মাসের মাথায় ২৬ আগস্ট একই জুটিকে নিয়ে ওই পরিচালক ধানমন্ডির একটি রেস্তোরাঁয় রাজ-দ্য নিউ সুলতান নামে আরেকটি ছবির মহরত করেন। অনুষ্ঠানে পরিচালক ঘোষণা করেন নভেম্বর বা ডিসেম্বরে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও সুইডেনে শুটিং হবে ছবিটির। কিন্তু দুটি ছবির একটিরও শুটিং শুরু হয় না। এই দুটি ছবির মহরতের পরিচালক সালমানের এখনকার কথা—‘ভিসা না পাওয়ার কারণে শুটিং শুরু করা যায়নি। যুক্তরাজ্যের ভিসা পাওয়া গেছে, বাকি দুটি দেশের ভিসা না পাওয়ার কারণে শুটিং শুরু করতে পারিনি। আশা করছি আগামী ফেব্রুয়ারিতে কাজ শুরু করতে পারব।’
কিন্তু অচেনা পৃথিবী ছবির মহরত আগে হয়েছে। শুটিংও দেশে করার কথা ছিল। তার খবর কী? পরিচালক বলেন, ‘মাঝে ছবিটি নিয়ে সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করেছি। অচেনা পৃথিবীর গল্প রাজ-দ্য নিউ সুলতান ছবির দ্বিতীয় কিস্তি হিসেবে নির্মাণ করব।’
তার আগে গত বছর মার্চে পরীমনি, জায়েদ খান ও আসিফ নূরকে নিয়ে ত্রিভুজ প্রেমের চাঁদনি ছবির মহরত করেন পরিচালক শামিমুল ইসলাম। প্রায় বছর ঘুরে এল, এখনো ছবির শুটিংয়ের খবর নেই। তবে আদৌ এই ছবির শুটিং হবে কি না, তা নিয়ে খোদ পরিচালকই সন্দিহান। তিনি বলেন, ‘আমরা ছবিটি নিয়ে এগোচ্ছিলাম। একটি গান রেকর্ডিংও হয়েছে। এরপর হঠাৎ করেই প্রযোজক মারা যান। ছবির ভবিষ্যৎ কী হবে, তা বলা মুশকিল।’
এদিকে জায়েদ খান, সাইমন ও নবাগত সানাইকে নিয়ে পরিচালক গাজী মাহবুব ভালোবাসা ২৪X৭ নামে একটি ছবি তৈরির ঘোষণা দেন। গত বছর ২০ মে এফডিসির মান্না ডিজিটাল কমপ্লেক্সে মহরত হয় ছবিটির। জুলাই থেকে ছবির শুটিং শুরুর কথা থাকলেও শুটিং শুরু হয়নি আজও। সাইমন সাদিক ও নবাগত নওরীনকে নিয়ে এফডিসিতে রকিবুল আলম প্রেমিক ছবির মহরত করেন গত বছরের ৮ আগস্ট। এ ছবিটিও মহরতেই আটকে আছে।
এরপর সাইমন সাদিক ও সানাইকে নিয়ে ২৮ সেপ্টেম্বর প্রতিশোধ ও প্রতীক্ষা নামে একসঙ্গে দুটি ছবির মহরত হয়। দুই ছবিরই পরিচালক মুস্তাফিজুর রহমান। গত বছরের নভেম্বর থেকে ছবি দুটির শুটিং শুরুর কথা ছিল। কিন্তু এত দিনে একটিরও শুটিং শুরু হয়নি। অবশ্য ছবির পরিচালক মুস্তাফিজুর রহমান বলেছেন, ‘আগামী ফেব্রুয়ারি থেকে প্রতীক্ষা ছবির শুটিং শুরু করব। এরপর প্রতিশোধ ছবির কাজ ধরব।’
একই পরিচালকের হৃদয় ছোঁয়া ভালোবাসা ছবিটির মহরত হয় গত ২২ অক্টোবর, উত্তরায়। জায়েদ খান, পরীমনি ও শিরিন শিলাকে নিয়ে ছবির অল্প অংশের শুটিংও হয়। এরপর দীর্ঘদিন ছবিটির শুটিং বন্ধ। এ ব্যাপারে পরিচালক বলেন, ‘৫ ফেব্রুয়ারি থেকে শিডিউল আছে। তবে শুটিং করা যাবে কি না, বলতে পারছি না এখন।’
এ ছাড়া গত বছর জানুয়ারি মাসে ছটকু আহমেদের এক কোটি টাকা ছবির মহরত হয়। ওই সময় ছবির প্রথম ধাপের কাজও হয়েছে। কিন্তু দীর্ঘ সময় পার হয়ে গেলেও ছবির বাকি অংশের শুটিং আর হচ্ছে না। একই মাসে পরিচালক সুমন দে বাপের দোয়া কি কম দামি? নামে একটি ছবির ঘোষণা দেন। তারও কোনো খবর নেই। এ ধরনের আরও একাধিক ছবিই বছর ধরে মহরতেই আটকে আছে!

আওয়াজ
সাফিউদ্দিন সাফির নির্দেশনায়, আবদুল্লাহ জহিরের কাহিনিতে রাজকুমার চলচ্চিত্রে নাম ভূমিকায় অভিনয় করার কথা ছিল বাপ্পী চৌধুরীর। ২০১৬ সালের ২৯ মে সন্ধ্যায় এফডিসিতে ছবিটির মহরতও অনুষ্ঠিত হয়। কিন্তু এখন পর্যন্ত থেমে আছে ছবির কাজ। পরিচালক জানালেন, ছবিটির শুটিং শুরু করা যায়নি। প্রযোজকসহ আসছে ফেব্রুয়ারিতে বসার কথা রয়েছে।
একই বছরের সাদা কালো প্রেম চলচ্চিত্রের মহরত অনুষ্ঠিত হয়। ছবিটির পরিচালক ছিলেন শাহ আলম মণ্ডল। অভিনয়শিল্পীর তালিকায় ছিলেন বাপ্পী চৌধুরী, আনিসুর রহমান ও এমিয়া এমি। পরিচালক জানালেন, ছবিটির শুটিং বাকি আছে। বাকি পড়েছে এফডিসির বিলও। সেসব ঝামেলা চুকে এ বছর হয়তো পর্দায় দেখা যেতে পারে ছবিটি।
২০১৬ সালের মাঝামাঝিতে আমি শুধু তোর হব চলচ্চিত্রটি নিয়ে ঘটা করে মহরত করেছিলেন পরিচালক রফিক শিকদার। প্রধান দুই চরিত্রে অভিনয় করার কথা ছিল মম ও নিরবের। মহরত অবধি ছিল ছবির কাজ। পরিচালক জানিয়েছেন, ছবিটির একটি গানও রেকর্ড হয়েছে। এখন প্রযোজক ও অভিনেতার সঙ্গে মনোমালিন্য চলছে।
ফেরদৌস ও সোহানা সাবাকে নিয়ে শুরু হয়েছিল প্রাচীর পেরিয়ে ছবির কাজ। এই শিশু চলচ্চিত্রের পরিচালক ছিলেন শাহানূর রিপন। ছবিটির কাজ শেষ অবধি এগোয়নি বলে জানা গেছে।
২০১৬ সালেই পরিচালক আবদুল মান্নান মহরত করেছিলেন প্রেমে অনেক জ্বালা ছবির। অভিনয় করার কথা ছিল কলকাতার অভিনেতা রাকিন ও বাংলাদেশের অরিনের। সে ছবির ভবিষ্যৎ এখন অনিশ্চিত।
বিগ বাজেটের চলচ্চিত্র হিসেবে ঘোষণা দেওয়া হয়েছিল দোস্ত দুশমন চলচ্চিত্রের। লন্ডনপ্রবাসী পরিচালক বি কে আজাদ দেশে এসে ঘটা করে মহরত করেছিলেন। কিন্তু সেটা আর আলোর মুখ দেখেনি।
এদিকে মহরত হওয়ার পর মাসের পর মাস, বছরের পর বছর শুটিং শুরু না হওয়ার কারণে ছবির শিল্পীদের প্রায় অস্বস্তির মধ্য পড়তে হয় বলে জানান চিত্রনায়ক বাপ্পী। তিনি বলেন, ‘প্রায় এক বছর হয়ে গেল আমারও বেশ কয়েকটি ছবির মহরত হয়েছে। কিন্তু শুটিং শুরু হচ্ছে না। চলচ্চিত্রের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট অনেকেই ওই সব ছবির শুটিংয়ের কথা জানতে চায়। জবাব দিতে পারি না। খুবই অস্বস্তিকর ব্যাপার

 
সংবাদটি পড়া হয়েছে 1036 বার
 
 
 
 
বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদ ও তারেক রহমান
 
 
 
 

সব মেনু এক সাথে

 
 

পূর্বের সংবাদ

 
 

অনন্য অনলাইন পত্রিকা

 
 
 

 
Plugin by:aAM
Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com