বিদ্যুতের দাম বেড়েছে, বিল কমেছে আসুন উল্লাস করি

নভেম্বর ২৬, ২০১৭ ৪:৪৭ পূর্বাহ্ণ

আসুন উল্লাস করি। আনন্দ করি। এ জন্য রং খেলাখেলি করি। বিদ্যুৎ বিল বাড়ানো হলেও যাদুকরী ছোঁয়ায় বিল কমই আসবে। এমন সুখবরে আনন্দে গড়াগড়ি খেতে ইচ্ছে করছে। তাই আসুন সবাই রাজপথে নামি।

আনন্দ, উল্লাসে মেতে উঠি। এ জন্য হয়ে যেতে পারে শুকরিয়া সমাবেশও। দেশের ইতিহাসে এই প্রথম ঘটনা কোনো কিছুর দাম বাড়ালেও বিল কম আসার ঘটনা। এ জন্য নোবেল কমিটির কাছে দেশের ১৭ কোটি মানুষ আবেদন করতে পারি। তারা যেন দাম বাড়ালেও বিল কম আসার ঘটনায় নতুন খাত সৃষ্টি করে এ জন্য নোবেল পুরস্কারে ভূষিত করেন। প্রয়োজনে বিশেষ এ ঘটনার জন্য তারা বিশেষভাবে যেকোনো সময় এ ঘোষণা দিতে পারেন। বাংলাদেশের মানুষ নোবেল কমিটির পাশে থাকবে। শুধু তাই নয়, বিশ্ব যেন এ যাদুকরী ঘটনাকে স্বীকৃতি দেয় এ জন্য ১৭ কোটি মানুষ যার যার অবস্থান থেকে লবিং চালাবে।

বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন সংক্ষেপে বিইআরসি প্রতি ইউনিট বিদ্যুতের দাম ৩৫ পয়সা বাড়ানোর ঘোষণা দেয়। একই সঙ্গে ঘোষণা দেয় এ বৃদ্ধির ফলে ৩০ লাখ গ্রাহকের বিদ্যুৎ বিল কমে আসবে। একই সঙ্গে ন্যূনতম চার্জ প্রত্যাহারের ঘোষণা দেয়া হয় সংবাদ সম্মেলনে। আর পরদিন শুক্রবার প্রধানমন্ত্রীর জ্বালানি উপদেষ্টা তৌফিক-ই-এলাহি চৌধুরী বীরবিক্রম এক অনুষ্ঠানে বলেছেন, বিদ্যুতের এ দাম বাড়ার ফলে জনজীবনে কোন প্রভাব ফেলবে না। এটাকে সামান্য ও মামুলি ব্যাপার বলে উল্লেখ করেছেন।

তিনি এও জানিয়েছেন, বিইআরসি নিজস্ব বিবেচনায় এই দাম বাড়িয়েছে। এর সঙ্গে সরকারের কোনো সম্পর্ক নেই। তারপরও সরকারকে এ খাতে ভর্তুকি দিতে হবে বলেও উপদেষ্টা জানান। একই অনুষ্ঠানে জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছেন, দাম খুব বেশি বাড়ানো হয়নি। ২০০ ইউনিট পর্যন্ত ব্যবহারকারীদের এখন থেকে মাসে ২০ থেকে ২৫ টাকা অতিরিক্ত বিল দিতে হবে। অন্যদিকে বিইআরসি চেয়ারম্যান বৃহস্পতিবার সংবাদ সম্মেলনে আরো জানিয়েছিলেন তাদের এ সিদ্ধান্তের ফলে ৩০ লাখ গ্রাহকের বিদ্যুৎ বিল কমে আসবে। এ ঘোষণার পর ৩০ লাখ পরিবারে চলছে উল্লাস-নৃত্য। পাশাপাশি ন্যূনতম চার্জ প্রত্যাহারের ফলে বিদ্যুৎ গ্রাহকরা সবাই আদায় করেছেন শুকরিয়া। আর তাই বলাবলি হচ্ছে শুকরিয়া সমাবেশ আয়োজন করার। গ্রাহকদের অনেকেই বিইআরসির এমন জনবান্ধব উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন। তারা বলেছেন, বিইআরসির এমন সূক্ষ্ম যাদু বিদ্যুৎ গ্রাহকদের পুলকিত করেছে। বিদ্যুতের দাম বাড়লেও বিল কমবে! এমন হিসাব গ্রাহকদের মনে উৎসাহ জুগিয়েছে। আর তাই শুকরিয়া সমাবেশে বিইআরসিকে গণসংবর্ধনা দেয়া এবং সেখান থেকে নোবেল কমিটির কাছে আবেদন জানানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। গ্রাহকদের এমন সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে সবাইকে এগিয়ে আসারও আহ্বান জানানো হয়েছে শুকরিয়া সমাবেশ উদযাপন কমিটির পক্ষ থেকে। তবে এ কমিটি সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্দিষ্ট একটি স্থানে এ সমাবেশ না করার। গোটা বাংলাদেশকেই সমাবেশের স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে। টেকনাফ থেকে হাতে হাত ধরে তেতুলিয়া পর্যন্ত গ্রাহকরা দাঁড়াবেন। মূল মঞ্চ হতে পারে মতিঝিল পিডিবির হেড অফিসের ছাদে। যেখান থেকে ফেসবুক লাইভের মাধ্যমে গোটা দেশে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানটি গ্রাহকরা দেখতে পাবেন। মন্তব্য করতে পারবেন। একই ভাবে নোবেল কমিটির কাছে আবেদনে সবাই স্বাক্ষর করে হাতে হাতে পৌঁছে দেবেন মূল মঞ্চে।

 
সংবাদটি পড়া হয়েছে 1224 বার
 
 
 
 
বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদ ও তারেক রহমান
 
 
 
 

সব মেনু এক সাথে

 
 

পূর্বের সংবাদ

 
 

অনন্য অনলাইন পত্রিকা

 
 
 

 
Plugin by:aAM
Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com