ফ্রানসিস ও কাঠবিড়ালির লোম

জানুয়ারি ২২, ২০১৭ ১:৫৫ অপরাহ্ণ

একদিন এক আবাসিক এলাকায় একটি নতুন কাঠবিড়ালি এলো। ও কাউকে বিরক্ত করত না। নিজের মতো করে থাকত। ওর ছিল সুন্দর একটি কোট। কোটটি খুব পছন্দ করত। খুবই যত্ন নিত। প্রতি মাসে চিরুনি দিয়ে কোটটি আঁচড়াত। লোম থেকে কিছু গোছা বের করত। গ্রামে গ্রামে গিয়ে লোমের গোছাগুলো কাউকে দিত। তার পরিবর্তে সে অন্য কিছু নিত, যেটা তার প্রয়োজন। এভাবেই চলতে লাগল দিন।

বছর শেষ হচ্ছে। বড়দিনের সময় এসে গেল। মানে উপহার। হ্যাঁ, এবার লোমের গোছাগুলো কাঠবিড়ালি কাউকে উপহার দিতে চাইল। একটি বাড়ি দেখল। গিয়ে দরজায় নক করল। বাড়িটির ভেতরে তখন পাঁচজন মেয়ে। ওরা নতুন কাপড় বুনছিল। কাজে ব্যস্ত ছিল। ওদের মধ্যে চারজনই ভালো কাজ জানত। আর একজন? মানে পঞ্চমজন, ওর নাম ফ্রানসিস। তখন ও শুধু নতুন নতুন কাজ শিখছিল। বাকি চারজনের মতো সেও দক্ষ হয়ে যাবে। তাই না?

ওরা দরজা খুলল। কাঠবিড়ালি ভেতরে এলো। বিনিময়ে কিছু না চেয়ে লোমের গোছাগুলো সে মেয়েদের উপহার দিতে চাইল। বলল, যেই মেয়ে সবার চেয়ে সুন্দর কিছু বুনবে, আমি তাকেই লোমের গোছাগুলো দিয়ে দেব। এটা শুনে প্রথম মেয়েটি বলল, আমি তোমার দুই কানের মতো সুন্দর দুটি বোবেলসহ আমার জন্য একটি টুপি বুনব।

কিন্তু বোবেল মানে কী? বলছি—উলেন টুপিতে, উল দিয়ে বানানো ছোট দুটি বল থাকে, ওটাই বোবেল। আমরা এখানে নতুন একটি শব্দ শিখলাম। অর্থ শিখলাম। চলো, এবার দ্বিতীয় মেয়েটির কাছে যাই আমরা।

দ্বিতীয় মেয়েটি বলল, আমি একটি মাফলার বুনব আমার জন্য।

তৃতীয়জন বলল, আমি একটি কার্ডিগান বুনব, ওটাতে একটি পকেট দেব।

চতুর্থজন বলল, আমি ঝালরসহ একটি শাল তৈরি করব। কাঠবিড়ালিকে বলল, আমার এই শালটি তোমার চোখের মতো উজ্জ্বল পুঁতি দিয়ে তা সাজাব।

এবার পঞ্চমজন, মানে ফ্রানসিস। সে কিছু বলার সাহস পেল না। কিন্তু কাঠবিড়ালি ওকে কিছু জিজ্ঞেস করতে থাকল। ফ্রানসিস তখন বাধ্য হয়ে ফিসফিস করে বলল, ‘আমি পশমি লোমগুলো দিয়ে চমত্কার এক দড়ি বুনব। ’ অন্য মেয়েরা ওর এই কথা শুনে হেসে উঠল। ফ্রানসিস বলল, আমার প্রিয়জনকে যে উপহার দেব, সেই উপহারে ঝোলানোর জন্য আমি এই দড়িগুলো ব্যবহার করব। এটা শুনে বাকি চারজন খুব লজ্জা পেল! ওরা তো এমন করে ভাবতেই পারেনি। স্বার্থপরের মতো ওরা কেবল নিজেদের জন্যই বানাতে চেয়েছে, তাই না? অন্যদেরও উপহার দিতে হয় কখনো কখনো, এটা ভাবেনি।

আর কাঠবিড়ালি? সব কথা শুনে কাঠবিড়ালি বুঝে গেল তখনই যে কাকে তার এই লোমগুলো উপহার দেওয়া উচিত। যে এটিকে বুঝে সঠিকভাবে ব্যবহার করবে, কাঠবিড়ালি তাকেই উপহার দিল।

ছোট্ট বন্ধুরা, তোমরা এবার বুদ্ধি দিয়ে বের করো, কাঠবিড়ালি তার লোমের গোছাগুলো ঠিক কাকে উপহার দিল?

কানাডার রূপকথা

অনুবাদ: সুজান হক

অলঙ্করণ : মানব

 
সংবাদটি পড়া হয়েছে 1223 বার
 
 
 
 
বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদ ও তারেক রহমান
 
 
 
 

সব মেনু এক সাথে

 
 

পূর্বের সংবাদ

 
 

অনন্য অনলাইন পত্রিকা

 
 
 

 
Plugin by:aAM
Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com