জায়ান্টদের হারের দিনে সিটির জয়রথ সচল

ফেব্রুয়ারি ১, ২০১৮ ৯:২৪ পূর্বাহ্ণ

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে বুধবার ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, চেলসির মত জায়ান্টরা বিধ্বস্ত হলেও টেবিলের শীর্ষে থাকা ম্যানচেস্টার সিটি ঠিকই জয়ের ধারাবাহিকতা ধরে রেখে আরো এগিয়ে গেছে। টটেনহ্যামের কাছে ইউনাইটেড ২-০ গোলে হারলেও চেলসির হারটা ছিল আরো বড়। টেবিলের দশম স্থানে থাকা বোর্নেমাউথের কাছে ঘরের মাঠ স্ট্যামফোর্ড ব্রীজে ব্লুজরা ৩-০ গোলে বিধ্বস্ত হয়ে সমর্থকদের হতাশ করেছে।

ম্যানচেস্টার সিটি ঘরের মাঠে ওয়েস্ট ব্রুমকে ৩-০ গোলে পরাজিত করে দ্বিতীয় স্থানে থাকা ইউনাইটেডের থেকে ১৫ পয়েন্টের সুস্পষ্ট ব্যবধানে এগিয়ে শীর্ষস্থান অক্ষুন্ন রেখেছে। লিগে আর মাত্র ১৩টি ম্যাচ বাকি রয়েছে।

টটেনহ্যামের ক্রিশ্চিয়ান এরিকসেনের ১১ সেকেন্ডের গোলেই ইউনাইটেডের জয় অনেকটা নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল। ম্যাচ শুরু না হতেই এই গোলের ধাক্কা আর সামলে উঠতে পারেনি হোসে মরিনহোর শিষ্যরা। ইউনাইটেডের হয়ে কাল অভিষেক হয়েছে চিলিয়ান তারকা অ্যালেক্সিস সানচেজের। বুধবারের ম্যাচগুলো শেষ মুহূর্তের শীতকালিন ট্রান্সফার দ্বারা প্রভাবিত থাকলেও তা যেন স্পারসদের মধ্যে কোন আধিপত্যই বিস্তার করতে পারেনি। পুরোপুরি আক্রমণাত্মক ফুটবলের মাধ্যমে তারা নিজেদের মাঠ ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে ইউনাইটেডের উপর পুরো ম্যাচেই দাপট দেখিয়ে ২-০ গোলের দারুণ জয় ছিনিয়ে নিয়েছে।

এর আগে চেলসি আর্সেনাল থেকে অলিভার জিরুদকে দলে ভেড়ানোর ঘোষণা দেয়। বোর্নেমাউথের বিপক্ষে কার্যত কোন প্রতিরোধই গড়ে তুলনে পারেনি ব্লুজরা। দিনের অপর ম্যাচে থিও ওয়ালকটের জোড়া গোলে লিস্টার সিটিকে ২-১ গোলে পরাজিত করেছে এভারটন।

ম্যাচ শেষে উচ্ছ্বসিত স্পারস বস মরিসিও পোচেত্তিনো বলেছেন, ‘আমরা শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ম্যাচ খেলার চেষ্টা করেছি। প্রথম থেকেই ম্যাচের উপর সমান গুরুত্ব দেয়াই আমাদের লক্ষ্য ছিল। লড়াইয়ের জন্য প্রস্তুত থাকলে ম্যাচ জেতা সহজ হয়। তার উপর দ্রুত যদি গোল পাওয়া যায় তবে প্রতিপক্ষের উপর চাপ সৃষ্টি সহজ হয়। মূল্যবান তিনটি পয়েন্ট আমাদেরকে শীর্ষ চারের লড়াইয়ে টিকে থাকতে সহযোগিতা করবে। আমি নিশ্চিত নতুন চুক্তিভুক্ত লুকাস মৌরা আজকের ম্যাচটি দারুণ উপভোগ করেছে।’

এই পরাজয়ে শীর্ষে থাকা সিটিকে ধরার আশা অনেকটাই শেষ হয়ে গেল ইউনাইটেডের। দলের আক্রমণভাগ শক্তিশালি করার লক্ষ্যে মরিনহো চলতি মাসেই সানচেজকে দলে ভেড়ায়। কিন্তু স্পারসরা দর্শকে ঠাসা ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে সফরকারীদের উপর একটু বেশ নির্দয় ছিল। কিক-অফ থেকে ১০.৪৮ সেকেন্ডে এরিকসেনের গোলটি ইউনাইটেডকেই শুধু হতবাক করে দেয়নি ২০১৮ সালে এটিই ইউনাইটেডের সবচেয়ে কম সময়ে গোল হজম। শুরুতেই পিছিয়ে পড়ে ইউনাইটেডের ম্যাচে ফিরে আসার চেস্টার ত্রুটি ছিলনা।

কিন্তু ২৮ মিনিটে ফিল জোনসের আত্মঘাতি গোলে মরিনহোর শিষ্যদের ব্যর্থতার ষোল কলা পূর্ণ হয়। ম্যাচ শুরুর ঠিক আগেই প্যারিস সেইন্ট-জার্মেই থেকে মৌরার দলভূক্তির ঘোষণা দিয়েছিল টটেনহ্যাম। পুরো ম্যাচে তারা ব্যবধান বাড়ানোর বেশ কয়েকটি সুযোগ নষ্ট করেছে। ৬৩ মিনিটে মরিনহো হুয়ান মাতা ও মারোনে ফেলাইনিকে বদলি বেঞ্চ থেকে উঠিয়ে এনেও সফল হতে পারেননি। যদিও মাত্র সাত মিনিট মাঠে ছিলেন ফেলাইনি। তার স্থানে এন্ডার হেরেরাকে মাঠে নামান মরিনহো। এই ঘটনায় অনেকটা ক্ষুব্ধ ফেলাইনি মাঠ থেকে বেরিয়ে এসে ডাগ আউটে না বসে জার্সি খুলে সোজা টানেল দিয়ে নীচে নেমে যান।

এই জয়ে স্পারসরা চতুর্থ স্থানে থাকা চেলসির থেকে মাত্র দুই পয়েন্ট পিছিয়ে পঞ্চম স্থানে রয়েছে। চ্যাম্পিয়নস লিগে সরাসরি খেলার সুযোগ পাওয়া এখন তাদের সামনেও উন্মুক্ত হলো।
মরিনহো বলেছেন, আজকের ম্যাচটা শুরুই হয়েছিল অদ্ভূত ঐ গোল দিয়ে। কিছুক্ষণ পরেই ঐ গোলের প্রভাব আমরা বুঝতে পেরেছি। ঠিক যেভাবে খেলা দরকরা টটেনহম্যান সেভাবেই খেলেছে। দিনের শেষে একটা কথাই বলতে হয় আমরা দারুণ একটি দলের বিপক্ষে আজ মাঠে নেমেছিলাম।

স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে দ্বিতীয়ার্ধের তিন গোলে বোর্নেমাউথের জয় নিশ্চিত হয়। ৫১ মিনিটে ক্যালাম উইলসন সফরকারীদের এগিয়ে দেন। ৬৪ ও ৬৭ মিনিটে জুনিয়র স্ট্যানিসলাস ও ন্যাথান আকে পরপর দুই গোল করলে চেলসির বড় পরাজয় নিশ্চিত হয়। ম্যাচ শেষে চেলসি বস এন্টোনিও কন্টে বলেছেন, আমাদের এই খারাপ ফলাফল মেনে নিতেই হবে। একইসাথে মানতে হবে এবারের মৌসুমে আমরা সব ম্যাচেই লড়াই করছি। ফুটবল এত সহজ নয়। জিরুদের অন্তর্ভুক্তি আক্রমণভাগে আমাদের সমস্যার সমাধান করবে না। আমি মনে করি এই মুহূর্ত ট্রান্সফার মার্কেট নিয়ে আলোচনার সঠিক সময় নয়। এটা এখন গুরুত্বপূর্ণ নয়। গুরুত্বপূর্ণ হলো আমাদের হাতে যারা আছে তাদের নিয়েই সেরাটা বের করে আনা।

মঙ্গলবার অ্যাথলেটিক বিলবাও থেকে রেকর্ড ৫৭ মিলিয়ন পাউন্ডে দলভূক্ত করা ডিফেন্ডার আমেরিক লাপোর্তেকে কাল মাঠে নামিয়েছিলেন সিটি বস পেপ গার্দিওলা। ১৯ মিনিটে ফার্নান্দিনহোর গোলে এগিয়ে যায় সিটি। এরপর দ্বিতীয়ার্ধে কেভিন ডি ব্রুয়েন ও সার্জিও আগুয়েরোর গোলে সিটির বড় জয় নিশ্চিত হয়।

 
সংবাদটি পড়া হয়েছে 1033 বার
 
 
 
 
বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদ ও তারেক রহমান
 
 
 
 

সব মেনু এক সাথে

 
 

পূর্বের সংবাদ

 
 

অনন্য অনলাইন পত্রিকা

 
 
 

 
Plugin by:aAM
Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com