জাতিগত বিজয় এবং আওয়ামী দৈন্যতা – আশিক ইসলাম

ডিসেম্বর ১৫, ২০১৭ ১১:২১ অপরাহ্ণ

:: সকলকে বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা।
এবার সোস্যাল মিডিয়ায় মানুষ সবচেয়ে বেশী সোচ্চার বিজয় দিবসে আমরা কতটুকু পরাধীন সে বিষয় নিয়ে। অনেকেই যার যার চিন্তা চেতনা ও বিশ্বাস থেকে লিখেছেন, মন্তব্য করেছেন, ব্যাঙ্গ করেছেন। এর মধ্যে সুহৃদ আবু রুশদ লিখেছেন “ বঙ্গবন্ধু, শহীদ জিয়াকে নিয়ে যে দিন পারস্পরিক ঐক্য প্রতিষ্ঠিত হবে কেবল সে দিনই হবে প্রকৃত জাতিগত বিজয়”।
এ প্রসঙ্গে ২০০২ সালের একটি ঘটনা মনে পড়ায় তা সকলের সাথে শেয়ার করছি –
২০০২ সালের ২৭ মার্চ গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সকারের মন্ত্রী পরিষদ বিভাগ থেকে মন্ত্রী পরিষদ সচিব ডঃআকবর আলী খান স্বাক্ষরিত “সরকারী অফিস আদালত ও প্রতিষ্ঠান সমুহে সরকার প্রধানের প্রতিকৃতি টাঙ্গানো” প্রসঙ্গে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়। আমার জানা মতে, এই প্রজ্ঞাপন জারির পুর্বে বিএনপি’র পক্ষ থেকে একটি রাজনৈতিক উদ্যোগ নেয়া হয়েছিলো। সংসদের সে সময়ের বিরোধী দল আওয়ামীলীগকে একটি প্রস্তাব দিয়ে বলা হয়েছিলো- আসুন আমরা সম্মিলিত ভাবে শেখ মুজিবুর রহমান এবং জিয়াউর রহমান এই দুই মহান নেতাকে সকল বিতর্কের উর্ধে রাখি। আসুন আমরা সম্মিলিত ভাবে সিদ্ধান্ত নেয়, এখন থেকে সকল সরকারী ও বেসরকারী সংস্থাসমুহের প্রধান/ অধঃস্তন অফিস সমুহের প্রধান ও বিদেশস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস সমুহের প্রধানের অফিস কক্ষে ও সরকারী মিলনায়তন কক্ষে শেখ মুজিবুর রহমান এবং জিয়াউর রহমানের প্রতিকৃতির মাঝখানে সরকার প্রধান হিসাবে প্রধানমন্ত্রীর প্রতিকৃতি টাঙ্গানোর প্রস্তাব কার্যকর করি ।
ততকালীন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আব্দুল জলিল এই প্রস্তাবে খুশী হয়েছিলেন এবং বলেছিলেন সভানেত্রী শেখ হাসিনার সাথে কথা বলে জানাবেন। পরদিন তিনি জানিয়েছিলেন শেখ হাসিনা এ প্রস্তাবে রাজি নন। আব্দুল জলিল দুঃখ করে বলেছিলেন আমারা নিজেরাই সংকির্নতার কারনে আমাদের নেতাদের ইমেজ নষ্ট করছি। বিভেদের এই রাজনীতি জিইয়ে রাখছি নিজেদের সার্থে।

 
সংবাদটি পড়া হয়েছে 1108 বার
 
 
 
 
বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদ ও তারেক রহমান
 
 
 
 

সব মেনু এক সাথে

 
 

পূর্বের সংবাদ

 
 

অনন্য অনলাইন পত্রিকা

 
 
 

 
Plugin by:aAM
Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com