কংগ্রেসের ধাক্কা এবার মধ্যপ্রদেশে

জানুয়ারি ২৩, ২০১৮ ৫:২৯ পূর্বাহ্ণ

২০১৪ সালে ভারতের লোকসভার সর্বশেষ নির্বাচনে বিপুল ভোটে জয়ী হয় ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি)। আর চরমভাবে পরাস্ত হয় কংগ্রেস। ৫৪৩ আসনের লোকসভায় কংগ্রেস জেতে মাত্র ৪৪ আসনে। আর বিজেপি জেতে ২৮২ আসনে। এই নির্বাচনের পর ধস নামতে থাকে কংগ্রেসের রাজনীতিতে।

তবে বিজেপির কিছু সিদ্ধান্তে মানুষের মধ্যে নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে। বিশেষ করে নোট বাতিলের সিদ্ধান্ত, জিএসটি চালু এবং আঁধার পরিচয়পত্রকে ব্যাংকসহ সরকারি কাজে বাধ্যতামূলক করায় অনেকেই কিছুটা বিরক্ত হন। বিভিন্ন রাজ্যে গোহত্যা বন্ধসহ বিভিন্ন ইস্যুতেও সাধারণ মানুষ বিজেপির ওপর বিরক্ত হয়।

বিজেপির এসব কর্মসূচির বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়েছে কংগ্রেস। বিশেষ করে নোট বাতিল, জিএসটি চালুর ঘটনায় মানুষ বিজেপির ওপর ক্ষুব্ধ হয়। মোদির রাজ্য গুজরাটে প্রথম ধরা পড়ে যে বিজেপির জনপ্রিয়তায় ভাটা পড়ছে। গত মাসে অনুষ্ঠিত হয় গুজরাট বিধানসভার ১৮২টি আসনের নির্বাচন। সেখানেই বিজেপিকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়ে মাঠে নামে কংগ্রেস। ফলও পায় হাতেনাতে। শাসনক্ষমতায় বিজেপি থাকলেও ১৮২ আসনের রাজ্য বিধানসভায় কংগ্রেস ছিনিয়ে নেয় ৭৮ আসন। এই নির্বাচনের ফলাফলে দেখা যায়, মোদির রাজ্যে বিজেপিবিরোধী হাওয়া প্রবল। চলছে প্রতিষ্ঠানবিরোধী হাওয়া।

এরপরে বিজেপি শাসিত আরেকটি রাজ্যেও কংগ্রেস চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেয়। সেটি ছিল মধ্যপ্রদেশ রাজ্য। এ বছরের শেষেই মধ্যপ্রদেশে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে রাজ্য বিধানসভার নির্বাচন। সেই নির্বাচনের আগে সম্প্রতি অনুষ্ঠিত হয়েছে মধ্যপ্রদেশের ১৯টি পৌরসভার নির্বাচন। সেই নির্বাচনেও কংগ্রেস চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছিল বিজেপিকে। ফলও পেয়েছে হাতেনাতে। ১৯টি পৌরসভার মধ্যে ৯ টিতে কংগ্রেস জিতেছে। আর বিজেপিও জিতেছে ৯টি পৌরসভায়। একটি পৌরসভায় জিতেছে নির্দল। গুজরাটের বিধানসভা নির্বাচন এবং মধ্যপ্রদেশের পৌরসভা নির্বাচনে কংগ্রেসের এই উত্থানে বিজেপির মধ্যে হতাশা দেখা দিয়েছে। তাঁরা মনে করছে, ‘সত্যিই কি কংগ্রেস আবার এগোতে শুরু করেছে? বাড়ছে কি কংগ্রেসের জনপ্রিয়তা?’

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকেরাও মনে করছেন, সাম্প্রদায়িক নীতি, নোট বাতিল, জিএসটি চালু, ক্ষুদ্র ব্যবসায় বিদেশি বিনিয়োগের ঘটনা বিজেপির জনপ্রিয়তা ধাক্কা খেয়েছে। তার প্রতিফলন ঘটেছে, গুজরাটের বিধানসভা আর মধ্যপ্রদেশের পৌর নির্বাচনে। অন্যদিকে এই ফলাফলে খুশি হয়েছে কংগ্রেস। আগামী ২০১৯ সালে অনুষ্ঠিত হতে চলেছে ভারতের পরবর্তী লোকসভা নির্বাচন। সেই নির্বাচনের দিকে তাকিয়ে কংগ্রেস নেতৃত্ব এবার রাহুল গান্ধীকে দলের সভাপতি করে দলকে গুছাতে শুরু করেছে। কংগ্রেসের লক্ষ্য ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে বিজেপিকে পরাজিত করা।

 
সংবাদটি পড়া হয়েছে 1104 বার
 
 
 
 
বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদ ও তারেক রহমান
 
 
 
 

সব মেনু এক সাথে

 
 

পূর্বের সংবাদ

 
 

অনন্য অনলাইন পত্রিকা

 
 
 

 
Plugin by:aAM
Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com