আপনি হয় দেশের পক্ষে নয় আওয়ামিলীগ

মার্চ ১৩, ২০১৮ ৩:০০ অপরাহ্ণ

:: কে কেন কোন বিষয়ে প্রতিবাদ জানাবে সেইটা নিয়ে যারা ধরাধরি করে তাদের , এই ধরাধরি নিয়ে আমার আপত্তি আছে।

আমি অনেক বিষয়ে চুপ থাকি। মন্তব্য করিনা। অনেক বিষয়ে মন্তব্য করিনা কারন আমি মনে করি, আমার মন্তব্য টু র‍্যাডিকাল যেইটা অনর্থক বিতর্ক সৃষ্টি করবে এবং এই বিতর্ক আমার দরকার নাই- আমি পিসফুল এবং কয়াইট থাকা পছন্দ করি ।

ফলে কে কোন বিষয়ে মন্তব্য করছে বা করছেনা, কে কোন বিষয়ে সিলেক্টিভ্লি মানবতা দেখাচ্ছে এই বিতর্কটাকে আমি বিরক্তির জায়গা থেকে দেখি।

কিন্ত আজকে, ২০১৮ সালের মার্চ মাস- বাংলাদশ জাতি একটা ক্রান্তিকালের মুখে দাড়ায় আছে।

২০১৪ সালের ইলেকশানে ভারতের সহায়তায় একটা পুতুল সরকার এই দেশের ক্ষমতায় বসানো হয়। কিন্ত এই পুতুল একটা হিংস্র সাইবর্গের মত তার সামনে যা পরেছে সব কিছু ধ্বংস করেছে।

আমাদের জাতির ৪০ বছরে যে অর্থনৈতিক ভিত্তি, সামাজিক ভিত্তি ছিল , যে শিক্ষা ব্যবস্থা ছিল, যে সম্ভাবনা তৈরি হয়েছিল, যে সভ্রেন ক্রেডিটের সুযোগ ছিল তার সব কিছু এই লুট করেছে।

এই দেশকে পার্ট পার্ট করে তারা বেচেছে, শুধু ভারত নয়, ভারত, চায়না বেলারুশ, রাশিয়া অ্যামেরিকা যে যা চায় তাকে বেচেছে।

এবং দেশের মধ্যে যে এলিটরা আছে, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, ব্যবসায়িক, বুরক্রেটিক, সামরিক, পুলিশি এলিট তাদেরকেও দেশের পার্ট পার্ট করে তুলে দিয়েছে। বিনিময়ে নিয়েছে আনুগত্য।

ফল যে হয়েছে, দেশের বাহিরের এক গ্রুপ সাম্রাজ্যাবাদি এবং দেশের ভেতরের কয়েক গ্রুপ মাফিয়া খুব্লে খুব্লে খেয়েছে এই দেশের সকল সম্পদ। ব্যাংক, বিমা, টেন্ডার, কন্ত্রাক্ট, সমুদ্র, খনি, বিদ্যুৎ কেন্দ্র, রাস্তা, রেল সব কিছু এরা বন্টন করেছে তাদেরকে যারা তাদের প্রতি আনুগত্য দেখিয়েছে ।

ক্ষমতা হারাবে এই ভয়ে তারা গড়ে তুলেছে বিশাল একটা গুণ্ডা গোষ্ঠী। মাফিয়াদেরকে বসানো হয়েছে, জেলায় জেলায় রাজনৈতিক এবং প্রশাসনিক গুরুত্তপুরন পদে।
আজকেই প্রথম আলোতে নিউজ ছিল, আওয়ামী নেতারা টর্চার চেম্বার খুলে চাঁদাবাজি করছে। প্রতিটা সরকারি ব্যাংককে উজার করে দেয়া হয়েছে। শিক্ষা ব্যবস্থা ধ্বংস করা হয়েছে।
এই লুট এবং ধ্বংসকে নিশ্চিত করতে যে দেশের যে প্রতিষ্ঠান গুলো ছিল সেই গুলোর প্রতিটাকে ধ্বংস করেছে।

ফলে যা হয়েছে, আজকে, এই ১০ বছরের খুললাম খুল্লা রেপের ফলাফল দেখা যাচ্ছে।

আজকে বলা হচ্ছে, কর্ম হীন প্রবৃদ্ধি। ধনি দরিদ্রের আয় বৈষম্য বেড়েছে। আত্মহত্যা বেড়েছে, নারী নির্যাতন বেড়েছে, শিশু বিয়ে বেড়েছে- কিন্ত ফেক ডাটা দিয়ে শুধু মাত্র জিডিপির প্রবৃদ্ধি ধরে রাখতে পেরেছে। কিন্ত, সরকারের নিজের খানা জরিপ বলছে, দারিদ্র বেড়েছে।

এই অবস্থায়, আজকে আবার এই বছরের একটা নির্বাচন হবে। এই নির্বাচনে তাদের একচ্ছত্র আধিপত্য নিশ্চিত করতে, নতুন করে শুরু হয়েছে গুম, লুণ্ঠন, পাচার এবং খুন।

আমরা দেখেছি পেপারে কিভাবে সাদা পোশাকের অস্ত্র ধারি লোক যারা আওয়ামী লিগ নাকি ডিবি বোঝার উপায় নাই। তারা রাজনৈতিক নেতাদের জনসভা থেকে ধরে নিয়ে যাচ্ছে।তাদের রিমান্ডে নিয়ে খুন হচ্ছে।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী সফরে এসেছে, ভারতীয় এস্টাব্লিশ্মেন্ট আওয়াজ দিচ্ছে হাসিনাকে টিকায় রাখতে হবে, প্রায় ৮০% বেড়ে গ্যাছে ফুড গ্রেইনের ইম্পোরট, ডলারের দাম ৮৪ তে ঠেকেছে যা ইঙ্গিত করছে মাসিভ মুদ্রা পাচার- সব ইলেকশান ইয়ারের গেম প্ল্যান।

এই অবস্থায় এই রাষ্ট্রের ভবিষ্যৎ কিভাবে টিকবে, সেইটা নিয়ে আপনাকে অবস্থান নিতে হবে।
হুইয়েভার ইউ আর।

ইউ কেন সে আপনি আওয়ামী লিগ। ফাইন সমস্যা নাই। ইউ মে হ্যাভ ইউর রিজন্স কেন আপনি আওয়ামি লিগ সাপোর্ট করেন। করতেই পারেন।

কিন্ত আপনি এই অবস্থায় নিরপেক্ষ থাকতে পারবেন না। আপনার নিজের সন্তানের অস্তিত্বের প্রশ্নে জখন আপনি চুপ থাক্তেছেন তার মানে, আপনি চুপ থাক্তেছেনা না- আপনি আওয়ামী লিগ থাক্তেছেন।

আই হেট টু সে আমার নিজের মনে হচ্ছে আমি জর্জ বুশের, ইউ আর ইদার উইথ আস ওর দা এনিমির মত শুনাচ্ছি কিন্ত রিয়ালিটি ইজ, এইটা একটা মরাল কজ যেই খানে আপনার আমার আমাদের সন্তানের এই রাষ্ট্রের অস্তিত্ব প্রস্নের মুখে।

ইটস ওকে, আপনি আওয়ামী লিগ হইতে পারেন। সেইটা কোন সমস্যা নাই। ইউ হ্যাভ ইউর জাস্টিফিকেশান কিন্ত এই ধরনের নির্যাতন , লুট, গুম, খুন, ধর্ষণের মুখে আপনি আর যাই হোক নিরপেক্ষ হতে পারেন না- যেইটা একটা লাই।

কিন্ত লেট আস বি ক্লিয়ার এতো হাজার কোটি টাকার ব্যাংক ডাকাতি, শিক্ষা ব্যবস্থা ধ্বংস , পৃথিবীর সর্বোচ্চ দামে সর্ব নিম্ন মানের রাস্তা, ব্রিজ, হত্যা, পাচার গুম, লুট দেখার পরে – ইদার আপনি আওয়ামী লিগ অর আপনি দেশের পক্ষে- এই সময়ে এইটার কোন ইন বিটুইন নাই।

লেখক : জিয়া হাসান, অনলাইন একটিভিষ্ট ।

 
সংবাদটি পড়া হয়েছে 1247 বার
 
 
 
 
বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদ ও তারেক রহমান
 
 
 
 

সব মেনু এক সাথে

 
 

পূর্বের সংবাদ

 
 

অনন্য অনলাইন পত্রিকা

 
 
 

 
Plugin by:aAM
Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com