আদালতে উত্তাপ, হৈচৈ ৬ সাক্ষীর শাস্তির আবেদন

জানুয়ারি ১১, ২০১৮ ৫:৫৬ পূর্বাহ্ণ

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় নথি জালিয়াতি ও মিথ্যা সাক্ষ্য দেয়ার অভিযোগ এনে রাষ্ট্রপক্ষের ৬ সাক্ষীর শাস্তির আবেদন করেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। গতকাল অষ্টম কার্যদিবসে যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের দিনে তার আইনজীবীরা ঢাকার পঞ্চম বিশেষ জজ আদালতে এ আবেদন করেন। যে ৬ জনের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার আবেদন করা হয়েছে তারা হলেন- মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও প্রথম সাক্ষী হারুনুর রশিদ, সাক্ষী মাজেদ আলী, আবদুল বারেক,  সৈয়দ জগলুল পাশা, মোস্তফা কামাল মজুমদার এবং তৌহিদুর রহমান। গতকাল এজে মোহাম্মদ আলী তার অসমাপ্ত বক্তব্য শেষ করেন। পরে খালেদা জিয়ার অন্য আইনজীবী ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শুরু করেন। আজ আবারো যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করবেন জমির উদ্দিন সরকার।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার বিচারকাজ রাজধানীর বকশিবাজারে কারা অধিদপ্তরের প্যারেড গ্রাউন্ডে স্থাপিত অস্থায়ী আদালতে চলছে। গতকাল বেলা ১১টা ৫০ মিনিটে খালেদা জিয়া কড়া নিরাপত্তায় আদালতে পৌঁছান। খালেদা জিয়া দেরিতে আদালতে পৌঁছালে তার দেরির কারণে খালেদা জিয়ার আইনজীবীদের ভর্ৎসনা করেন ঢাকার পঞ্চম বিশেষ জজ আদালতের বিচারক মো. আখতারুজ্জামান। এ সময় বিচারক যুক্তিতর্কের শুনানি গতকালই শেষ করার কথা বললে আদালতে উপস্থিত বিএনপিদলীয় আইনজীবীরা হৈ চৈ শুরু করেন। এ সময় বিচারক বলেন, ‘আপনারা হৈ চৈ করলে আমি আদালতের কার্যক্রম মুলতবি করবো।’ খালেদা জিয়ার আইনজীবী মাহবুব উদ্দিন খোকন আদালতের উদ্দেশে  বলেন, আমরা মার্শাল ল কোর্ট দেখেছি, প্রধান বিচারপতির কোর্টও দেখেছি। এভাব কোন বিচারক কথা বলেন না্‌ একদিন না হয় একটু দেরি হয়েছে। আসামির বয়স, শারীরিক অবস্থা বিবেচনা করা উচিত। এ পর্যায়ে খালেদা জিয়ার আইনজীবী আবদুর রেজাক খান আদালতের উদ্দেশে বলেন, আমরা মামলার প্রাসঙ্গিক বিষয় নিয়ে যুক্তিতর্ক তুলে ধরার চেষ্টা করছি। যতক্ষণ প্রাসঙ্গিক বিষয় নিয়ে আমাদের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষ না হচ্ছে, অনুগ্রহ করে ততক্ষণ আমাদের সময় দেবেন।
গতকাল শুনানির শুরুতে খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা আদালতকে জানান, তারা (খালেদার আইনজীবী) তদন্ত কর্মকর্তাসহ রাষ্ট্রপক্ষের ৬ জন সাক্ষীর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার আবেদন করতে চান। বিচারক তখন  যুক্তিতর্ক শেষ হওয়ার পর আবেদন করতে বলেন। পরে খালেদা জিয়ার আইনজীবী এ জে মোহাম্মদ আলী তার অসমাপ্ত যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শুরু করেন। শুনানিতে তিনি দণ্ডবিধিতে বিশ্বাসভঙ্গ ও আত্মসাৎ বিষয়ে বিভিন্ন ধারা, সাক্ষ্য আইনের সংশ্লিষ্ট ধারা, উচ্চ আদালতের নজিরসহ সরকারি  অর্থ ব্যবস্থাপনা সংক্রান্ত বিভিন্ন বিধি ও অনুচ্ছেদ তুলে ধরেন। শুনানিতে খালেদা জিয়া কোনো অপরাধ করেননি দাবি করে এ মামলার অভিযোগ থেকে খালেদা জিয়ার খালাস চান এ জে মোহাম্মদ আলী। একই সঙ্গে জাল নথি তৈরি করে মিথ্যা সাক্ষ্য দেয়ার অভিযোগ এনে ছয় সাক্ষীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য আদালতে আবেদন করেন তিনি। দুপুরের বিরতির পর এ জে মোহাম্মদ আলী যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষ করেন। পরে খালেদা জিয়ার পক্ষে চতুর্থ আইনজীবী হিসেবে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শুরু করেন ব্যারিস্টার জমির উদ্দীন সরকার। আদালতকে তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দুর্নীতির মিথ্যা মামলার রূপকার সাবেক সেনাপ্রধান মঈন উ আহমেদ। মাইনাস টু থিওরির অংশ হিসেবে খালেদার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা করেছে দুদক। এই মামলার ৩২ জন সাক্ষীর জবানবন্দির বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ অংশ আদালতে পড়ে শোনান সিনিয়র আইনজীবী জমির উদ্দীন সরকার। শুনানিতে খালেদা জিয়াকে সম্পূর্ণ নির্দোষ দাবি করে তিনি বলেন, খালেদা জিয়া কোনো ব্যাংক হিসাব খুলেছেন কোনো সাক্ষীই তা বলেননি। টাকা হস্তান্তরের কাগজপত্রেও খালেদার কোনো স্বাক্ষর নেই। খালেদা জিয়া এই মামলার সঙ্গে কোনোভাবেই জড়িত নন।
মামলার নথিপত্র অনুযায়ী জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের নামে বিদেশ থেকে আসা দুই কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৪৩ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে ২০০৮ সালের ৩রা জুলাই রমনা থানায় দুদক এ মামলা দায়ের করে। তদন্ত শেষে ২০০৯ সালের ৫ই আগস্ট আদালতে অভিযোগপত্র (চার্জশিট) দাখিল করা হয়। ২০১৪ সালের ১৯শে মার্চ অভিযোগ গঠনের মধ্য দিয়ে এ মামলার বিচারকাজ শুরু হয়। মামলার অন্য আসামিরা হলেন- খালেদা জিয়ার বড় ছেলে ও বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান, সাবেক মুখ্য সচিব কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী, প্রয়াত প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের ভাগ্নে মমিনুর রহমান, মাগুরার সাবেক সাংসদ কাজী সালিমুল হক কামাল ও ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদ। এ মামলায় তারেক রহমানের বিরুদ্ধে চলতি বছরের ২৬শে জানুয়ারি গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত।

 
সংবাদটি পড়া হয়েছে 1110 বার
 
 
 
 
বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদ ও তারেক রহমান
 
 
 
 

সব মেনু এক সাথে

 
 

পূর্বের সংবাদ

 
 

অনন্য অনলাইন পত্রিকা

 
 
 

 
Plugin by:aAM
Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com